Home / জাতীয় / মীর কাসেম আলীর শেষ দুটি ইচ্ছা অপূর্ণ রয়ে গেল বললেন স্ত্রী

মীর কাসেম আলীর শেষ দুটি ইচ্ছা অপূর্ণ রয়ে গেল বললেন স্ত্রী

Loading...

মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে ফাঁসি কার্যকরের অপেক্ষায় থাকা জামায়াত নেতা মীর কাসেম আলীর দুটি ইচ্ছা রয়ে গেল বলে জানিয়েছেন তার স্ত্রী খন্দকার আয়েশা খাতুন।

শনিবার সন্ধ্যায় মীর কাসেম আলীর সঙ্গে কাশিমপুর কারাগার থেকে দেখা করে বের হয়ে যাওয়ার সময় গণমাধ্যম কর্মীদের কাছে এ কথা জানান তিনি।

খন্দকার আয়েশা খাতুন বলেন, মীর কাসেমের শেষ ইচ্ছা ছিল তার ছেলে ব্যারিস্টার মীর আহমদ বিন কাসেম আরমানকে দেখা এবং তার সঙ্গে কথা বলা। মৃত্যুর আগে আরমানের সঙ্গে বিভিন্ন বিষয়ে পরামর্শ করার ইচ্ছাও ছিল তার।  তার নামাজে জানাজা পড়ানোর কথা মীর কাসেম বলেছিলেন বলে জানান তিনি।  কিন্তু বেশ কিছুদিন ধরে আরমান নিখোঁজ থাকায় মীর কাশেমের ইচ্ছা পূরণ হচ্ছে না।

খন্দকার আয়েশা খাতুন জানান, এ সরকারের আমলে রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষার আবেদন করে লাভ নেই।  প্রাণভিক্ষা চাইলেও তা পাওয়া যেত না।  এ কারণে তিনি তা চাননি।

তিনি বলেন, আমরা উনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করে এসেছি। উনি মৃত্যু ভয়ে ভীত নন।  তিনি বলেছেন, এ মৃত্যু শহীদী মৃত্যু। যারা তাকে ফাঁসিতে ঝুলাচ্ছে তাদের পরাজয় হবে। এদেশে একদিন ইসলাম বিজয়ী হবে।

Loading...

এর আগে মীর কাসেমের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে তার পরিবারের ৪৩ সদস্য কারাগারে যান।  চার দফায় ৩৮ জনকে তার সঙ্গে দেখা করার অনুমতি দেন কারা কর্তৃপক্ষ।

এদিকে মীর কাসেম আলীর ফাঁসি কার্যকর করতে প্রস্তুত জল্লাদ শাহজাহান ভুঁইয়া।  তাকে সহায়তা করতে রয়েছেন দ্বীন ইসলাম, রিপন ও শাহীন।

এরই মধ্যে শাহজাহানের নেতৃত্বাধীন

চার সদস্যের জল্লাদ টিম মীর কাসেম আলীর ফাঁসি কার্যকরে চূড়ান্ত মহড়া সম্পন্ন করেছে।  এসব তথ্য কারা সূত্রে  জানা গেছে।

মানবতাবিরোধী মামলায় এর আগে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিদের ফাঁসি কার্যকর করার এ ধরনের প্রস্তুতির বেশ মিল পাওয়া যাচ্ছে।

যুদ্ধাপরাধের মামলায় ফাঁসির দণ্ডাদেশ পাওয়া আর কোনো আসামির ক্ষেত্রে শেষ পর্যায়ের সাক্ষাতের সময় এত বিপুল সংখ্যক পরিবারের সদস্য ও স্বজনদের সাক্ষাৎ করতে দেখা যায়নি।  মীর কাসেম আলীর ক্ষেত্রে তা দেখা গেল।

 

About Bangla News Live Admin

Check Also

0521

মুক্তিযোদ্ধার ন্যূনতম বয়স ১৩ বছর নির্ধারণ

Loading... মুক্তিযোদ্ধার সংজ্ঞা ও বয়স নির্ধারণ করে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়। জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *