Home / শিক্ষা / ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ডি-বোট’ রোবট এর যাত্রা শুরু

ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ডি-বোট’ রোবট এর যাত্রা শুরু

Loading...

দীর্ঘ এক বছর গবেষণার পর ড্যাফোডিল আন্তর্জাতিক বিশ্ববিদ্যালয়ে আজ উদ্ভোধন করা হল বিশ্ববিদ্যালয়ের তরুন গবেষক ও ডিআইইউ রোবটিক্স ক্লাবের সাবেক সভাপতি হাফিজুল ইমরানের তৈরি করা হিউমনোয়েড রোবট ড্যাফোডিল রোবট সংক্ষেপে ‘ডি-বোট’ এর। বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব ফান্ডে তৈরি করা হয় রোবটটি।

‘ডি-বোট’ ক্লাব

দেখতে মানুষের মত রোবটটি কথা বলা ছাড়াও হাত মেলানো, গান গাওয়া, বিভিন্ন অঙ্গভঙ্গি দেখানো, সংখ্যা গণনা করা ছাড়াও হাতের সব কয়টি আঙ্গুল নাড়াতে পারে। সব থেকে মজার বিষয় সে হাতের আঙ্গুল গুনে সংখ্যা গণনা করে। তাছাড়া ডি-বোট বলে ডাকলে বক্তার দিকে ঘাড় ঘুরিয়ে সাড়া দেয় রোবটটি।

‘ডি-বোটের’র উদ্ভোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ভারতীয় হাইকমিশনের ফার্স্ট সেক্রেটারি যিষ্ণু প্রসন্ন মুখার্জী। এছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. ইউসুফ মাহবুবুল ইসলাম, প্রোভিসি প্রফেসর ড.মাহবুব উল হক মজুমদার, রেজিস্ট্রার ইঞ্জিনিয়ার এ কে এম ফজলুল হক ও সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর ড. তৌহিদ ভুইয়া উক্ত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

Loading...

 

জনাব যিষ্ণু প্রসন্ন মুখার্জী রোবটটির উদ্ভোধন করে তার সাথে হাত মিলান। তিনি তার বক্তব্যে রোবটটির নির্মাতা হাফিজুল ইমরানের প্রশংসা করে বলেন, “আমি দুবছর ধরে বাংলাদেশে আছি। এদেশের তরুন প্রজন্মের কাজ দেখে আমি বিস্মিত। এদেশের উন্নতিতে কেউ বাধা হয়ে দাড়াতে পারবে না। জনাব ইমরান অনেক ভাল একটি কাজ করেছেন। তিনি প্রশংসার দাবীদার। তার তৈরি করা রোবটটি ভবিষ্যতে শিক্ষা ক্ষেত্রে অবদান রাখবে বলে আমি আশাবাদী।”

অনুষ্ঠানের শেষ অংশে উপস্থিত শিক্ষার্থীরা ডি-বোটের সাথে কথা বলে হাত মিলায়, এছাড়াও ডি-বোট সম্পর্কে হাফিজুল ইমরানকে নানা ধরণের প্রশ্ন করেন। ভবিষ্যতে রোবটটি কি কাজে ব্যাবহার করা হবে, সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ১০ম ব্যাচের ছাত্র নোমান আহমেদ অপুর এপ্রশ্নের জবাবে হাফিজুল ইমরান বলেন, “ভবিষ্যতে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ ছাড়াও দেশের বিভিন্ন উন্নয়ন মূলক প্রজেক্টে ডি-বোটকে ব্যবহারের ইচ্ছা আছে আমার। বিশেষ করে ডি-বোট যেন শিশুদের পড়াতে পারে এ ব্যাপারে কাজ করছি।”

About Bangla News Live Admin

Check Also

0456

মাস্টার্স এ পাসের হার ৯৩.৪৪ শতাংশ,ফলাফল দেখতে সাথেই থাকুন

Loading... জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৩ সালের মাস্টার্স শেষপর্ব পরীক্ষার পাসের হার ৯৩ দশমিক ৪৪ শতাংশ। বিস্তারিত …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *